Wn/bn/প্রায় সপ্তাহব্যাপী ভূমিকম্পের পর দক্ষিণ-পশ্চিম আইসল্যান্ডে অগ্ন্যুৎপাতের সূত্রপাত ঘটে

< Wn‎ | bn
Wn > bn > প্রায় সপ্তাহব্যাপী ভূমিকম্পের পর দক্ষিণ-পশ্চিম আইসল্যান্ডে অগ্ন্যুৎপাতের সূত্রপাত ঘটে
নিরীক্ষণের জন্য অপেক্ষমান!  এই নিবন্ধটি ২০ জুন, ২০২৪ অনুযায়ী নিরীক্ষণ বা পর্যালোচনা করা হয়নি। এখানে প্রদর্শিত তথ্যগুলোর পুনঃমূল্যায়ন করুন। (আরও জানুনশোধন)

বৃহস্পতিবার, ২১ ডিসেম্বর ২০২৩

রেকজেনেস উপদ্বীপে আগ্নেয়গিরির বিন্যাসের মানচিত্র।
বিপর্যয় এবং দুর্ঘটনা
বিপর্যয় এবং দুর্ঘটনা
সম্পর্কিত শিরোনামগুলো
অংশগ্রহণ

গত সোমবার, দক্ষিণ-পশ্চিম আইসল্যান্ডের রেইকজেনেস উপদ্বীপে প্রায় এক সপ্তাহের তীব্র ভূমিকম্পের কার্যকলাপের ফলস্বরূপ একটি আগ্নেয়গিরির অগ্ন্যুৎপাত ঘটে যা লাভা এবং তীব্র ধোঁয়ার উচ্ছ্বাস প্রকাশ করে, যেমনটি দেশটির আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছে। অগ্ন্যুৎপাত কাছাকাছি একটি শহরের জন্য উদ্বেগ বাড়ায় এবং একটি জটিল পরিস্থিতির ইঙ্গিত দেয় যা জনসাধারণের স্থানান্তরকে প্ররোচিত করেছে।

অগ্ন্যুৎপাতটি অক্টোবরের শেষ থেকে শুরু হওয়া এই উপদ্বীপের আশেপাশের অঞ্চলে কয়েক সপ্তাহের উচ্চতর ভূত্বকীয় কার্যকলাপের চূড়ান্ত পরিণতি। মঙ্গলবার আইসল্যান্ড সরকারের বিবৃতি অনুসারে, ২০২১ সালের পর থেকে এই অঞ্চলে চতুর্থবার আগ্নেয়গিরির বিস্ফোরণ ঘটেছে। এই প্রতিনিয়ত বিস্ফোরণগুলো এই অঞ্চলটিকে দুর্যোগ প্রবণ এলাকায় পরিণত করেছে।

পার্শ্ববর্তী শহরগুলোর বাসিন্দাদের উচ্চ সতর্কতায় রাখা হয়েছিল। লাভা প্রবাহের ভয়ঙ্কর হুমকির কারণে গত মাসে প্রায় চার হাজার লোককে ইতিমধ্যেই সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। অগ্ন্যুৎপাতের ফলে জনবসতি গুলোর দিকে ধোঁয়ার সম্ভাব্য বিস্তারের ঘটতে পারে, যা কিছু দিনের মধ্যেই রাজধানীতে পৌঁছাতে পারে বলে আশা করা হচ্ছে।

আগ্নেয়গিরিবিদরা, সোমবার রাতে তাদের প্রাথমিক মূল্যায়নে অগ্নুৎপাতের অবস্থান সম্পর্কে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন এবং এটিকে সবচেয়ে খারাপ সম্ভাব্য পরিস্থিতিগুলির মধ্যে একটি বলে মনে করেছেন। পুনরাবৃত্ত আগ্নেয়গিরির কার্যকলাপ এই অঞ্চলের চলমান সমস্যা গুলোর উপর আলোকপাত করে।


উৎস

edit
  • মিচেল ম্যাকক্লাস্কি, টেলর ওয়ার্ড এবং জেসি ইয়েং। "Volcano erupts on Iceland’s Reykjanes peninsula weeks after town evacuated" — সিএনএন, ১৯ ডিসেম্বর, ২০২৩ (ইংরেজি)
  • "Iceland volcano: Pollution warning for capital after eruption" — বিবিসি, ২০ ডিসেম্বর, ২০২৩ (ইংরেজি)


শেয়ার করুন!

ইমেইল করুন এই খবরকে

ফেসবুকে শেয়ার করুন

টেলিগ্রামে শেয়ার করুন

লিঙ্কডইনে শেয়ার করুন

টুইটারে শেয়ার করুন

শেয়ার করুন!

ইমেইল করুন এই খবরকে

ফেসবুকে শেয়ার করুন

টেলিগ্রামে শেয়ার করুন

লিঙ্কডইনে শেয়ার করুন

টুইটারে শেয়ার করুন